1. admin@prottashanewsbd24.com : admin :
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১১:১৭ অপরাহ্ন

বাংলাদেশে এমন কোনো আইন হবে না, যেটা স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়ঃ আইনমন্ত্রী।।

প্রত্যাশা নিউজ ডেস্ক
  • সময় : মঙ্গলবার, ৩১ মে, ২০২২
  • ৪৫ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলাদেশে এমন কোনো আইন হবে না, যেটা স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়, এমনটি বলেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন,আলোচিত ‘গণমাধ্যম কর্মী আইন’ বাতিল না চেয়ে বরং তা সংশোধনের দাবি জানানো উচিত। মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনভাবে খবর প্রচারের অধিকার খর্ব করে- সরকার এমন কোনো আইন করবে না। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দরকার হলে আইনটি সংশোধন করা হবে। সরকার চায় সংবাদ মাধ্যমে শৃঙ্খলা থাক।

আজ মঙ্গলবার (৩১ মে) সচিবালয়ে গণমাধ্যম কেন্দ্রে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) আয়োজিত গণমাধ্যমকর্মী আইন, ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন ও ডাটা সুরক্ষা আইন বিষয়ে ‘বিএসআরএফ সংলাপ’-এ তিনি এ তথ্য জানান। বিএসআরএফ সভাপতি তপন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সংলাপ সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হক।

গণমাধ্যমকর্মী আইন নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, বাংলাদেশে এমন কোনো আইন হবে না, যেটা স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। সরকার চায় সংবাদ মাধ্যমে শৃঙ্খলা থাক। ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত না করে সঠিক তথ্য দিয়ে সমৃদ্ধ করার প্রয়োজনীয়তা থেকেই কিছু আইন থাকতে হয়।

সাংবাদিকদের অবসরের বয়সসীমা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গণমাধ্যমকর্মী আইনে অবসরের বয়সসীমা ৫৯ বছর বলার উদ্দেশ্য হলো, কোনো সংবাদকর্মী চাইলে স্বেচ্ছায় অবসরে যেতে পারবেন। তবে কোনো মালিক বাধ্য করতে পারবেন না। এ আইনের সঠিক বাস্তবায়ন করতে, আরও পরিষ্কার করে তথ্য সংযোজন করা হবে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, এটা সাংবাদিকতায় বাধা সৃষ্টির জন্য করা হয়নি। প্রযুক্তির উন্নয়ন হয়েছে। এর মাধ্যমে যে অসুবিধার সৃষ্টি হচ্ছে, সেগুলোও মোকাবিলা করতে হবে। সেজন্য আমরা এ আইন করেছি। এই আইনের অপব্যবহার বন্ধে এরই মধ্যে একটি কমিটি কাজ করছে। আগামীতে এর অপব্যবহার বন্ধ হবেই।

তিনি বলেন, এ আইনে অনেকে অহেতুক মামলা করছিলেন। এ প্রেক্ষাপটে ২০১৯ সালে আমি বলেছিলাম, এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিচ্ছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ করার পর তিনি ব্যবস্থা নিয়েছেন। এ আইনে মামলা হলে সঙ্গে-সঙ্গে কাউকে যেন গ্রেফতার না করা হয়, আমরা সেই ব্যবস্থা নিয়েছি। এর ফলে এখন যত্রতত্র গ্রেফতার হচ্ছে না। দরকার হলে এ আইনটিও সংশোধন করা হবে।

গুজব বন্ধের জন্য সারাবিশ্ব ব্যবস্থা নিচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, আমাদেরও ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। সেজন্য এ আইন করা হয়েছে। আমরা সেবা করতে এসেছি, ত্রুটি হলে অবশ্যই শুনব।

আমি একটা জিনিস ব্রডলি বলে দিতে চাই, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন সংবিধান উপহার দেন তখন দুটি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করেছেন। একটা হল বাক-স্বাধীনতা, আরেকটা হল সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা। যেটা আমাদের সংবিধানে মৌলিক অধিকার হিসেবে গ্যারান্টি, সেই জিনিসটা পাল্টে দেওয়া হবে, সেটি হয় না।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব  সংরক্ষিত © প্রত্যাশা নিউজ বিডি ২৪ © ২০২১
Theme Customized BY Theme Park BD